মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০২:৩০ অপরাহ্ন
নোটিশ::
দৈনিক স্বদেশ সংবাদ লাইভ খবর পড়ুন

গফরগাঁওয়ে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম প্রত্যাশা-২ প্রকল্পে ৩ বিদেশ-ফেরত নারী পেলেন সহায়তা

রিপোর্টার / ৬১ ভিউ
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০২৪, ৩:৩৭ অপরাহ্ন

স্টাফ রিপোর্টার : প্রবাসীদের শ্রমে-ঘামে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করার পাশাপাশি বিদেশ-ফেরত মানুষের পাশে দাঁড়াতে কাজ করছে বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের আওতায় প্রত্যাশা-২ প্রকল্প থেকে দেশের অন্য সব জেলার মতোই ময়মনসিংহের বিদেশ-ফেরত মানুষ পাচ্ছেন মনোসামাজিক কাউন্সেলিং, সামাজিক ও অর্থনৈতিক পুনরেকত্রীকরণ সহায়তা।
এ সহায়তার অংশ হিসেবে গত সোমবার (১৩ মে ২০২৪) বিকেলে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার সালটিয়া ইউনিয়নের তিন বিদেশ-ফেরত অভিবাসী নারীকে গরু-বাছুর কিনে দেওয়া হয়। এর আগে দুপুরে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রত্যাশা-২ প্রকল্পের আওতায় প্রদত্ত ম্যাটারিয়াল এ্যাসিস্টেন্সের চেক বিদেশ-ফেরত অভিবাসী নারীদের হাতে তুলে দেন গফরগাঁও উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনো) রুবাইয়া ইয়াসমিন। এ সময় তিনি ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মকান্ডের প্রশংসা করে বলেন, ‘বিদেশ-ফেরতদের পাশে দাঁড়িয়ে মানবিক দায়িত্ব পালন করছে ব্র্যাক।’
ময়মনসিংহের তিন বিদেশ-ফেরত অভিবাসী নারী জেসমিন আক্তার, মোছাঃ বিলকিস ও মোছাঃ আসমা খাতুন উন্নত জীবনের স্বপ্ন নিয়ে গিয়েছিলেন সৌদি আরব। সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করলেও বেতনের বদলে তাদের ভাগ্যে জুটেছিলো শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। তারা বাধ্য হয়ে দেশে ফেরেন। হতাশা ও কষ্টে কাটছিল তাদের দিন। ব্র্যাকের মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের পক্ষ থেকে তাদের খুঁজে বের করা হয়। প্রত্যেকের সঙ্গে আলোচনা করে তৈরি করা হয় পরিকল্পনা- যাতে তারা জীবিকা নির্বাহ করতে পারেন। এ সময় তারা গবাদিপশু পালনে আগ্রহের কথা ব্র্যাককে জানান। প্রাথমিক সহায়তা হিসেবে তাদের প্রত্যেককে গরু ও বাছুর কিনে দেওয়া হয়।
উল্লেখ্য, ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রত্যাশা-২ প্রকল্পের আওতায় ২০২০ সালের ১ এপ্রিল বা তার পরবর্তী সময়ে ময়মনসিংহ, শেরপুর ও নেত্রকোনার বিদেশ-ফেরত ক্ষতিগ্রস্ত অভিবাসীদের ময়মনসিংহের মাইগ্রেশন অ্যান্ড রিইন্ট্রিগ্রেশন সাপোর্ট সেন্টারের মাধ্যমে নানামুখী পুনরেকত্রীকরণ সেবা দেওয়া হচ্ছে।
ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্র্যাকের যৌথ অর্থায়নে ইমপ্রুভড সাসটেইনেবল রিইন্ট্রিগ্রেশন অব বাংলাদেশি রিটার্নি মাইগ্রেন্টস (প্রত্যাশা-২) প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন সংস্থা এবং সারাবিশ্বের শীর্ষস্থানীয় এনজিও- ব্র্যাক, ১৯৭২ সালের প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে দেশে ও দেশের বাইরে নানাবিধ কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। ব্র্যাকের বিভিন্ন কর্মসূচিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি কর্মসূচি হল মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম। ব্র্যাকের এই প্রোগ্রাম ২০০৬ সাল থেকে দেশের অভিবাসনপ্রবণ জেলাসমূহে বিদেশগামী নারী ও পুরুষের মাঝে সঠিক তথ্যের মাধ্যমে নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক কার্যক্রম, বিদেশ-ফেরতদের পুনরেকত্রীকরণ, প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ, অভিবাসন খাতে অ্যাডভোকেসি ও নানাবিধ সহযোগিতামূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com