সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৬:১১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
দৈনিক স্বদেশ সংবাদ লাইভ খবর পড়ুন

বঙ্গবন্ধু বাঙ্গালী জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে মুক্তির স্বাদ দিয়েছেন-মেয়র

রঞ্জন মজুমদার শিবু / ১৯২ ভিউ
আপডেট সময় : সোমবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৫:৩৯ অপরাহ্ন

সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বলেছেন, বিজয়ের মাস ডিসেম্বরের আজকের এই দিনে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি স্বাধীনতার মহান স্থপতি, বাঙালির রাখাল রাজা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। যার আহবানে সাড়া দিয়ে এদেশের আবাল বৃদ্ধ বনিতা কৃষক শ্রমিক মজুর সকল শ্রেণী পেশার মানুষ নিজের জীবন বাজি রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল, ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতা এবং লাল সবুজের পতাকা। স্মরণ করি শহীদ জাতীয় চার নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লক্ষ শহীদ, নির্যাতিত ২ লক্ষ মা বোন এবং সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের।
গতকাল রবিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধায় নগরীর ছোট বাজার (মুক্তিযোদ্ধা সরণি) মুক্ত মঞ্চে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ময়মনসিংহ মুক্ত দিবস ও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠান মালার তৃতীয় দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলার জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে মুক্তির স্বাদ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার মাধ্যমে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত একটি দেশ উপহার দিয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধ একদিনে হয়নি ১৯৪৮ সাল থেকে মুক্তির সিড়ি তৈরি করে বাঙ্গালী জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে বাংলাদেশকে স্বাধীনতা দিয়েছেন।
মোঃ ইকরামুল হক টিটু আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা পরবর্তীতে একটি সোনার বাংলা গড়ার জন্য কাজ শুরু করে দিয়েছিলেন। একটি জনকল্যাণমুখি দেশ গড়ার লক্ষ্যে খাদ্য, চিকিৎসা, কর্মসংস্থানের কাজ শুরু করে ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ভুলন্ঠিত করার জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট। জাতীর পিতা যৌবন কাল থেকেই দেশের মুক্তি কামনায় কাজ করেছেন। ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের ডাক দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছেন। ৫২ সালে মাতৃভাষাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য নেতৃত্ব দিয়েছেন। ছয় দফা আন্দোলন করেছেন। ৬৯ এর গণ অভ’্যত্থান ৭০ এর নির্বাচন সহ সকল আন্দোলনে তিনি ভ’মিকা রেখেছেন। প্রশাসনকে জনমুখি করেছেন জাতির পিতা, কৃষকদের কল্যাণে কাজ করেছেন। কৃষিবিদদের ক্লাস ওয়ান মর্যাদা দিয়েছেন। তিনি ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থা করেছেন। গণমুখি শিক্ষা ব্যবস্থা করেছেন। আজ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে দেশ আরও আগেই এগিয়ে যেত। জাতির পিতার মুত্যুর কারণে আমরা আমাদের স্বপ্ন থেকে বঞ্চিত হয়েছি। কিন্তু একটি চক্র আমাদের ইতিহাসকে বিকৃত করে তুলে ধরেছেন। আজ সময় এসেছে নতুন প্রজন্মের কাছে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ যারা জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন তাদের বলব তাঁরা দেশের জন্য কি করেছেন। ৭৫ এর
পর আপনারা দেশের জন্য কি করেছেন। আপনারা নিজেদের সম্পদের পাহাড় গড়েছেন, দেশের অর্থ বিদেশে পাচার করেছেন। মেয়র বলেন, দেশ আজ সকল সেক্টরে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বছরের প্রথম দিন শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। সকলকে শিক্ষার সুযোগ করে দিয়েছেণ্ যা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অর্জন। প্রান্তিক পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে গেছেন। নারীদের জন্য বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগের ফলে নারীরা আজ এগিয়ে যাচ্ছে। কর্মক্ষেত্রে বেতন বোনাসের জন্য আন্দোলন করতে হয় না। তিনি আরো বলেন, প্রযুক্তি ব্যবহার করে যুব সমাজ ঘরে বসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয করছেন। কিন্তু আপনা মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করেছেন। বর্তমানে সারের কোন সমস্যা নাই্ সারের জন্য কৃষককে প্রাণ দিতে হয় না। কিন্তু তাদের সময় সিন্ডিকেট করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। বর্তমানেও তাই করার চেষ্টা করছেন। তারা বাংলাদেশের মানুষকে কষ্ট দিয়েছেন।
মেয়র বলেন আমাদের অর্জন মানুষের মাঝে তুলে ধরতে হবে। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ। অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে তারা প্রস্তুত। বিএনপি ১০ তারিখ ডেড লাইন দিয়েছেন। তারা দেশ চালাবে। আপনারা চেলেঞ্জ দিয়ে তা রক্ষা করতে পারেন নি। মানুষের মন জয় করুন। মানুষকে কষ্ট দিয়েন না। আপনাদের অতিত কর্মকান্ডের কথা মানুষ ভুলে যায়নি। ষড়যন্ত্র করে রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়া যাবেনা। প্রযুক্তি ব্যবহার করে গুজব ছড়াবেন না। দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করবেন না। বিরোধিতার খাতিরে বিরোধিতা করবেন না। সঠিক ইতিহাসে আসুন। মানুষকে ভালোবেসে রাষ্ট্রিয় ক্ষমতায় আসুন আমাদের কোন আপত্তি নাই। মানুষের কল্যাণে কাজ করুন। তিনি আরো বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে আমাদের বিপুল ভোটে জয় লাভ করতে হবে। তাই আমাদের অর্জনগুলি সকলের মাঝে তুলে ধরুন। দেশের সেবায় আতœ নিয়োগ করুন। আমাদের রাজনৈতিক ভাবে সচেতন হতে হবে। দেশের জন্য কাজ করতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আপনারা ভালো থাকবেন। তাই দেশের সকল উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের সকলের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।
মেয়র বলেন, স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পার হয়ে গেলেও এখনো এদেশে স্বাধীনতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধীচক্র দেশ ও জনবিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রমে লিপ্ত। মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি, তরুন প্রজন্ম জাতির পিতার আদর্শের সৈনিকদের মুক্তিযোদ্ধাদের আদর্শ ধারন করে প্রতিক্রিয়াশীল বিএনপি জামাত জোটের সকল চক্রান্ত প্রতিহত করতে হবে।
সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আলোচনা করেন সেক্টর কমান্ডার ফোরাম জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ রফিকুজ্জামান, ঢাকা মহানগর ইউনিট সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর এমদাদুল হক বুলবুল, সেক্টর কমান্ডার ফোরাম মহানগর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নাজমুল হক মন্ডল, মহানগর আওয়ামীলীগ সাবেক সাংস্কৃতিক সংগঠন লিটন পাল, মহানগর আওয়ামীলীগ সাবেক দপ্তর সম্পাদক সেলিম শেখ কাজর, মহানগর যুবলীগ আহবায়ক শহিীনুর রহমান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ আব্দুল আওয়াল মিন্টু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তানজির আহমেদ রাজীব, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,
উপস্থাপনায় ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড জেলা শাখার সহ-সভাপতি কৃষিবিদ এফ এম আনোয়ার হোসেন বাবু ও মহানগর শাখার সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফা কামাল শামীম। এসময় জেলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দ, আওয়ামীলীগ ও অংগ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই সকল শহীদদের স্মরণে দাড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
আলোচনা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন বিভিন্ন সংগঠন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com